ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক রক্ষায় সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম এর টিপস

ফেসবুক হ্যাক থেকে বাঁচার উপায়

হঠাৎ করে ফেসবুক একাউন্ট হ্যাকিংয়ের ঘটনা বেড়ে গেছে। আইডি হ্যাক করে অপকর্ম করা হচ্ছে প্রতিনিয়তই। উল্টা-পাল্টা ছবি ও স্ট্যাটাস দিয়ে নষ্ট করা হচ্ছে সামাজিক গণমাধ্যমকে, সৃষ্টি করা হচ্ছে সহিংসতা।  ব্ল্যাকমেইল বা সম্মানহানি ও চাঁদাবাজি পর্যন্ত গড়াচ্ছে। তাই নিজের ফেসবুক আইডিকে রক্ষা করা এখন প্রয়োজন হয়ে দাঁড়িয়েছে। অন্যথায় যেকোনো সময় আপনিও পড়ে যেতে পারেন মারাত্মক বিপদে।

সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইমঃ

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক থেকে রক্ষায় কিছু টিপস দিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. নাজমুল ইসলাম।

১. Two factor authentication অন করুন। এটা Settings এ ঢুকে Security and Logon এ পাবেন। একটা মোবাইল নাম্বার যোগ করুন যেটাতে আপনার কন্ট্রোল রয়েছে। বিদেশ ভ্রমণের সময় কিছু কোড জেনারেটেড করে রাখুন, যাতে জরুরী সময় ব্যবহার করতে পারেন।

২. সবার আগে গোপনীয় ও সেন্সেটিভ কনভারসেশনগুলো সঙ্গে সঙ্গে মুছে ফেলুন। হ্যাকড হয়ে গেলে এইসব কনভারসেশনগুলো দিয়ে হ্যাকাররা ব্ল্যাকমেইল করতে পারে বা ফিনান্সিয়াল তথ্যগুলো হাতিয়ে নিয়ে আপনার ক্ষতি করতে পারে।

৩. ফিশিং লিংকগুলো চিনতে চেষ্টা করুন এবং পরিহার করুন।

৪. জাতীয় পরিচয়পত্র মোতাবেক ফেসবুক প্রোফাইল বানান বিশেষ করে জন্মতারিখ ও নাম সঠিক করে লিখুন; যেমন, Angel, মনপাখি, ভোরের পাখি, অচেনা বালক, বুঝ বালক/বালিকা ইত্যাদি নাম পরিহার করুন; নতুবা ফেসবুক অথরিটি পরে মিথ্যা বা ফেক ভেবে বিপদের সময় সাড়া নাও করতে পারেন।

৫. সবাই নিজের প্রোফাইলের লিংকটা মনে রাখুন এবং নিউমেরিক আইডিটা কোথাও যত্ন করে রাখুন যাতে করে হ্যাকড হয়ে গেলেও এটা রেফারেন্স হিসেবে উপকারে আসে।

৬. জাতীয় পরিচয়পত্র বা পাসপোর্ট কপি অপরিচিতকে দিবেন না বা যাকে দিচ্ছেন তাকে এই কপির অপব্যবহার রোধে সতর্ক করুন, নইলে এই কপি ব্যবহার (submit) করে স্পামাররা আপনার আইডি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নিবে।

৭. Settings এ ঢুকে Security and Logon-এ WHERE YOU’RE LOGGED ON দেখুন। অপরিচিত কোন ডিভাইস থেকে আপনার আইডি ব্যবহার করা হচ্ছে কিনা সেটা দেখুন। হয়ে থাকলে সেই ডিভাইসগুলো রিমুভ করুন।

৮. সেই সাথে Settings এ ঢুকে Security and Logon-এ SETTING UP EXTRA SECURITY তে ৩/৫ জন বিশ্বস্ত contact যোগ করুন।

৯. যে মেইল আইডি দিয়ে ফেসবুক প্রোফাইল খুলেছেন সেটার পাসওয়ার্ড মনে রাখুন এবং সেটা নিরাপদে রাখুন। পারলে সেটারও টু ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন চালু করুন। অনেক পুরনো Yahoo মেইল দিয়ে প্রোফাইল খুলে থাকলে এখুনি Yahoo মেইলটি পরিবর্তন করে Gmail বা অন্য নিরাপদ মেইল ব্যবহার করুন। Yahoo মেইলটি হ্যাকড হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। এটা Yahoo-এর একটি দুর্বলতা।

সহায়তার জন্য সাইবার নিরাপত্তাঃ

যেকোনো সহায়তার জন্য সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ বিভাগের হটলাইনে 01769691522 কল করুন এবং কানেক্টেড থাকুন এই পেইজে- Cyber Security & Crime Division, CTTC, DMP.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *